1. [email protected] : Nirob Ahmed : Nirob Ahmed
  2. [email protected] : Nur Mohammad : Nur Mohammad
৭ গোলের রোমাঞ্চকর ম্যাচে রিয়ালকে হারিয়ে সিটির হাসি
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:৪৫ অপরাহ্ন

৭ গোলের রোমাঞ্চকর ম্যাচে রিয়ালকে হারিয়ে সিটির হাসি

  • সময় : বুধবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২২
  • ৪১ ০ পঠিত
সিটি

চ্যাম্পিয়নস লিগে ম্যানচেস্টার সিটি ও রিয়াল মাদ্রিদের মধ্যকার হাইভোল্টেজ ম্যাচে ‘৭’ গোল দেখেছে দর্শকরা। ৭ গোলের রোমাঞ্চকর ম্যাচে রিয়ালকে হারিয়ে শেষ হাসি হেসেছে ম্যানসিটি।

ম্যানচেস্টারের ইতিহাদে স্টেডিয়ামে এদিন শুরু থেকে আক্রমণাত্মক খেলা ম্যানসিটি শেষ পর্যন্ত ৪-৩ গোল ব্যবধানে জয়লাভ করে। ম্যাচে ম্যানসিটির পক্ষে কেভিন ডি ব্রুইনা, গ্যাব্রিয়েল জেসুস, ফিল ফোডেন ও বার্নার্দো সিলভা গোল করেছেন। অপরদিকে এই ম্যাচেও রিয়ালকে টেনে নিয়েছেন দলটির দুই তারকা ও নির্ভরযোগ্য স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা ও ভিনিসিয়াস জুনিয়র।

ঘরের মাঠে শুরুতেই রিয়াল মাদ্রিদকে কোনঠাসা করে ফেলে ম্যানসিটি। কিকঅফে রিয়াল শুরু করলেও ম্যানসিটি বল পেতেই গোলের জন্য চেষ্টা শুরু করে। খেলার দেড় মিনিটের মাথায় রিয়াদ মাহরেজ ডি-বক্সের ডান থেকে ক্রস করতেই হেডে দলকে এগিয়ে দেন ডি ব্রুইনা।

দশ মিনিট না যেতেই ২-০ স্কোরলাইনে এগিয়ে যায় পেপ গার্দিওলার দল। প্রথমে গোল করা ডি ব্রুইনা এবার অ্যাসিস্টের ভূমিকায়। বক্সের বাম পাশ থেকে জেসুসের উদ্দেশ্যে বল বাড়ান বেলজিয়ান এই তারকা। সেখান থেকে এক ডিফেন্ডার ও রিয়াল গোলরক্ষক কর্তোয়াকে বোকা বানিয়ে দলকে এগিয়ে দেন ম্যানসিটির ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড জেসুস। চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়ালের বিপক্ষে দেখা সর্বশেষ তিন ম্যাচেই গোল পেলেন জেসুস।

দুই গোলে পিছিয়ে থেকে ম্যাচে ফিরতে মরিয়া রিয়াল অবশ্য সুবিধা করতে পারছিল না। উপরন্তু ঘরের মাঠে ম্যানসিটি আক্রমণের পসরা সাজিয়ে বসে। ম্যাচের ২৬তম মিনিটে সিলভার পাশ থেকে জোরালো শট করেন মাহরেজ। তবে বুলেট গতির শটটি পাশের জালে লাগায় গোলবঞ্চিত হোন তারা। এর তিন মিনিট পরে গোলের দারুণ সুযোগ তৈরি করেন ফোডেনও। তবে বাইরে দিয়ে উড়িয়ে মারেন এই ইংলিশ ফুটবলার।

টানা আক্রমণে পরাস্ত রিয়ালকে ম্যাচে ফেরান দলটির নায়ক বেনজেমা। ফেরলঁদ মঁদির পাস থেকে বাঁ পায়ের দারুণ শটে জাল খুঁজে নেন আগুণে ফর্মে থাকা এই ফরাসি তারকা। প্রথমার্ধে ২-১ ব্যবধানে পিছিয়ে থেকে মাঠ ছাড়ে অতিথিরা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে আবারও রিয়ালের পরীক্ষা নিতে থাকে স্বাগতিক সিটি। মাহরেজের শট ফিরতেই ফাঁকায় বল পেয়ে যান ফোডেন। জাল বরাবর শট আনলেও তাকে হতাশ করেন কারভালহো। তবে ম্যাচের ৫৩তম মিনিটে গোলের দেখা পেয়ে যান সিটির এই ইংলিশ ফরোয়ার্ড। ফেরনান্দিনহোর পাস থেকে বল পেয়ে দলকে ৩-১ ব্যবধানে এগিয়ে দেন ফোডেন।

তবে ২ মিনিটের ভেতরে ব্যবধান কমান ভিনিসিয়াস। দারুণ এক একক প্রচেষ্টায় দলের ব্যবধান কমান এউ ব্রাজিলিয়ান। মঁদি থেকে বল পেয়ে সিটি ডিফেন্ডার ফেরনান্দিনহোকে ডজ দিয়ে গতিতে পরাস্ত করেন বাকিদের। পরে ওয়ান টু ওয়ানে সিটির গোলরক্ষক এডেরসনকে পরাস্ত করেন ভিনিসিয়াস।

৭৪তম মিনিটে গোল করে ম্যানসিটিকে ৪-২ ব্যবধানে এগিয়ে দেন পর্তুগিজ তারকা সিলভা। তবে দুই গোলের লিড ধরে রাখতে পারেনি অতিথিরা। রিয়ালের হয়ে ৬০০তম ম্যাচ খেলতে নামা বেনজেমা ৮২তম মিনিটে স্পট কিক থেকে গোল করে ৪-৩ ব্যবধান করেন। লাপোর্তের হ্যান্ডবলের সুযোগে পেনাল্টিটি পায় রিয়াল।

চ্যাম্পিয়নস লিগে সবশেষ চার ম্যাচে দুটি হ্যাটট্রিক করা বেনজেমার আসরে গোল হলো ১৪টি। সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় বায়ার্নের রবার্ট লেভানদোভস্কিকে হঠিয়ে শীর্ষে বসলেন বেনজেমা। চলতি মৌসুমে রিয়ালের জার্সিতে ৪১ গোল পেলেন এই ফরাসি স্ট্রাইকার।

শেষ ১৩ মিনিটে গোল ব্যবধান বাড়ানোর জন্য মরিয়া হয়ে যায় ম্যানসিটি। তবে সুযোগ পেয়েও ব্যবধানটা আর বাড়িয়ে নিতে পারেনি গার্দিওলার দল। এক গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বার্নাব্যুতে ফিরতি লেগে খেলতে নামবে ম্যানসিটি। তবে সামনের বুধবারের ম্যাচের আগে সিটির সামনে বড় ভয় হয়ে থাকবেন বেনজেমা। বার্নাব্যুতে পিএসজি ও চেলসিকে যে একাই ধসিয়ে দিয়েছেন এই ফরাসি।

অবশ্য সিটির জন্য স্বস্তির বিষয় হচ্ছে চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বশেষ তিন ম্যাচেই রিয়ালের বিপক্ষে জয় পেয়েছে ম্যানসিটি। বায়ার্ন মিউনিখ ও জুভেন্টাসই কেবল চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়ালের বিপক্ষে টানা তিন জয় পেয়েছিল। এ ছাড়াও রিয়াল চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে প্রথম লেগে হারার পর ইতোপূর্বে আর ফাইনালে উঠতে পারেনি। পাঁচবারই প্রথম লেগ হারের পর বাদ পড়েছিল লস ব্লাঙ্কোসরা।

এখান থেকে শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

এই জাতীয় আরে খবর
© All rights reserved © 2021 @CTnews Sports
Design CTnews Sports